মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ

১। মরহুম আবু সাইদ: পিতা মরহুম নাসির উদ্দিন,গ্রাম: নাদোসৈয়ধপুর।তিনি তদানিন্তন পশ্চিম পাকিস্তানের সিএস,পি ছিলেন এবং পাকিস্তান গভনরের মোনায়েম খানের ভাতিজিকে তিনি বিবাহ করেছিলেন।

 

২। মরহুম আব্দুল কাদের সরকার : পিতা মরহুম বাবর আলী,গ্রাম নাদোসৈয়দপুর,তিনি তৎকালীন যশোর সরকারী কলেজের একজন খ্যাতিয়মান প্রিন্সিপাল ছিলেন।

৩।জনাব মোঃ রেজাউল কাদের সরকার: পিতা মরহুম আব্দুল কাদের সরকার,গ্রাম : নদোসৈয়দপুর,তিনি বরতমানে বাংলাদেশ সচিবালয়ের তথ্য মন্দ্রনালয়ের যুগ্ন সচিব পদে কমরত আছেন।

 

৪। মরহুম জরিপ উদ্দিন সরকার : গ্রাম : হামকুড়িয়া তিনি তদানিন্তন পুব পাকিস্তান আমলে মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের কাউন্সিলের প্রসিডেন্ট ছিলেন।তিনি একজন জনদরদী ব্যক্তি ছিলেন।

 

৫।মরহুম ইব্রাহিম হোসেন তালুকদার : গ্রাম দোবিলা, তিনি তদানিন্তন পুব পাকিস্তান আমলে মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়নের কাউন্সিলের প্রসিডেন্ট ছিলেন।তিনি একজন জনদরদী ব্যক্তি ছিলেন।তিনি ঘোড়ায় চরে যাতায়াত করতেন।

 

৬। শহীদ ইয়ার মাহমুদ: পিতা কিয়াম আলী গ্রাম আমবাড়িয়া, তিনি একজন রাজনীতিবীদ,মুক্তিযোদ্ধা,সমাজ সেবক এবং দোবিলা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

 

৭। মরহুম খোদা বকস সরকার: গ্রাম : হামকুড়িয়া তিন পাকিস্তান আমেলে মাগুড়াবিনোদ ইউনিয়ন কাউন্সিলের সদস্য ছিলেন। তিনি অত্যন্ত ন্যায় পরায়ন ও একজন বিশিষ্টি সমাজ সেবক ছিলেন।

 

৮। গাজী ম,ম আমজাদ হোসেন মিলন : গ্রাম : মাগুড়া বিনোদ,তিনি বাংলাদেশ স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহন করেছিলেন। তিনি পলাশ ডাঙ্গা যুব শিবীরের মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের  কমান্ডার ছিলেন। অত্র থানার নওগাঁয় তার দল যুদ্ধে অংশগ্রহন করে ১৫০ জন পাক হানাদার বাহিনীকে হত্যা করে অক্ষত দেহে জয়যুক্ত হয়েছিলেন।তিনি বাংলাদেশ আমলে অত্র ইউনিয়নের প্রথম চেয়ারম্যান নিবচিত হয়েছিলেন। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবর রহমানের একজন অতি স্নেহধন্য ব্যক্তি। তিনি বতমানে তাড়াশ উপেজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে করমরত আছেণ।

 

৯। স ম আব্দুলল জলিল: পিতা মরহুম কাজেম সরদার,গ্রাম দোবিলা তিনি এত্র ইউনিয়নের এবং তাড়াশ উপজেলা চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনকালে অত্র এলাকায় অনেক স্কুল কলেজ মাদ্রাসা এবং অফিস আদালত এবং উজেলা পরিষদ ভবন গড়ে তোলেন।


Share with :

Facebook Twitter